পর্নোতারকা সঙ্গে ট্রাম্পের প্রেমের অভিযোগ,ঘরছাড়া মেলানিয়া.

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মানেই গণমাধ্যমের শিরোনাম। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ের পর থেকেই বিভিন্ন বিতর্কিত কাণ্ড ঘটিয়ে বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছেন তিনি। তবে এবারের ঘটনা একটু অন্যরকম। কারণ, ট্রাম্প ‘কাণ্ডের’ প্রভাব এবার নাকি পড়েছে তার নিজ পরিবারেই।সংবাদমাধ্যম দ্য সানের খবরে বলা হয়, সম্প্রতি পর্নোতারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে ট্রাম্পের প্রেমের অভিযোগ ওঠে। স্বামীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ একেবারেই ভালোভাবে নিতে পারেননি মেলানিয়া ট্রাম্প। তাই তিনি নাকি এক প্রকার এড়িয়েই চলছেন ট্রাম্পকে। হোয়াইট হাউস ছেড়ে মাঝে-মধ্যেই সময় কাটাচ্ছেন রাজধানী ওয়াশিংটনের একটি হোটেলে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্টর্মি ড্যানিয়েলসের আসল নাম স্টেফেনি ক্লিফোর্ড। ২০০৬ সালে এই পর্নোতারকার সঙ্গে প্রেমে মজেছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। এর কিছু আগেই মেলানিয়ার সঙ্গে বিয়ে হয় ট্রাম্পের। ২০১৬ সালে নির্বাচনের সময় ওই সম্পর্কের কথা চেপে রাখতে স্টেফেনিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এক লাখ ৬০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন বলে উল্লেখ করা হয় ওয়াল স্ট্রিট জার্নালসের এক প্রতিবেদনে।এদিকে মেলানিয়ার হোটেলে দিনযাপনের বিষয়ে হোয়াইট হাউসের এক সূত্র সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলকে বলে, ‘জানুয়ারিতে মেলানিয়া সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন হোয়াইট হাউস থেকে দূরে থাকছেন এবং রাজধানীর একটি হোটেলে বসবাস করছেন। এর মধ্যে তিনি নিউইয়র্ক ভ্রমনেও গেছেন।’ওই সূত্র আরও জানায়, ‘হোয়াইট হাউসের কর্মীদের মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে স্বামীর সম্পর্কের খবর মেলানিয়াকে গভীরভাবে আঘাত করে। এটা তার জন্য বিব্রতকর ও অপমানজনক। এর মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে তার সম্পর্কে দূর্বল হয়ে পড়েছে।’ট্রাম্প বর্তমানে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে অংশ নিয়ে অবস্থান করছেন সুইজারল্যান্ডের ডেভস শহরে। তার সঙ্গে সফরে অংশ নেননি স্ত্রী মেলানিয়া। যুক্তরাষ্ট্রেই অবস্থান করছেন ফার্স্ট লেডি। তবে হোয়াইট হাউস বলছে সফরে মেলানিয়ার অনুপস্থিতির সঙ্গে পর্নোতারকা ইস্যুর কোনো সম্পর্ক নেই।

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Call Now
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

১৮ প্লাস

Call Now