ধর্ষকদের সঙ্গে আপোস করার জন্য বাদীকে এসপির চাপ।

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। অথচ অভিযুক্তদের সঙ্গে বসে বিষয়টি মিটিয়ে নেওয়ার জন্য বাদীকে বারবার চাপ দিয়ে আসছিলেন নেপালের কাঠমান্ডুর পুলিশ সুপার বিদ্যানন্দ মাঝি এবং সেখানকার একটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা চিরঞ্জীব দাহাল।

এ ঘটনায় তাদের বহিস্কারের পরিকল্পনা করছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহন কৃষ্ণ বলেন, ইতোমধ্যেই তাদের বহিষ্কারের ব্যাপারে চিঠি ইস্যু করা হয়েছে। শিগগিরই তাদের বহিস্কার করা হবে।

কাঠমান্ডু পোস্টের খবরে জানা গেছে, ১৪ বছর বয়সী ওই কিশোরী ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়। বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে তার সাবেক প্রেমিক।

পরে এ ব্যাপারে মামলা হলে তদন্তে নেমে অভিযুক্তদের হয়ে ওই তরুণীর পরিবারকে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে পুলিশের ওই কর্মকর্তারা।

ইতোমধ্যেই ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে স্থানান্তর করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, তথ্য-প্রমাণ লোপাটের আশঙ্কায় তাকে বদলি করা হয়েছে। বাকি সিদ্ধান্ত সরকারের।

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.