ওজন কমছে না

খুব হিসাব করেই চলছে সব। ডায়েট, ব্যায়াম, ক্যালরির হিসাব—সব ঠিকঠাক। অভ্যাসও বদলেছে অনেকটাই। শুধু বদলাচ্ছে না ওজনের অঙ্কটা। এ রকম সময়ে হতাশ হওয়ার কথাই আপনার। কিন্তু আপনি কি জানেন কেন ওজন কমছে না?

খুব বেশি ক্যালরির হিসাব
খুব হিসাব করে ক্যালরি নিচ্ছেন। ধরা যাক, ওজন আর উচ্চতা মিলিয়ে আপনি ১ হাজার ২০০ ক্যালরি খেতে পারেন। কিন্তু তাতে যথেষ্ট পরিমাণ আমিষ আর আঁশ নেই। খনিজের ঘাটতি আছে প্রচুর। অথবা দ্রুত ওজন কমাবেন বলে দিন দিন নিজে থেকেই কমিয়ে দিচ্ছেন খাবারের ক্যালরির পরিমাণ! এই দুটি একসঙ্গে তো ভয়ংকর বটেই, আলাদা আলাদাভাবে যেকোনো একটিও যদি করে থাকেন, তাহলে এখানেই আছে আপনার ওজন না কমার বড় কারণ।

ছোট ছোট খাবার
দিনে অন্তত তিনবার আপনাকে খুব ভালো করে খেতে হবে। সে খাবার মানে কিন্তু প্রচুর শর্করাযুক্ত খাবার নয়। সে খাবার মানে মাছ, মাংস, সবজি মিলে একটা সুষ্ঠু খাবার। অনেকেই ডায়েট করছেন বলে তিনবেলা ঠিকমতো খেতে চান না। তাঁরা সম্পূর্ণ খাবারটাকে ভাগ করে করে অনেকবার খান। তাতে যেমন ক্যালরির হিসাবটা ঠিক থাকে না, তেমনি প্রচুর ভুল খাবারও খাওয়া হয়। সঠিক খাবারের অভাবে শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে, কাজে অনীহা তৈরি হয়। তিনবেলা ঠিকমতো না খাওয়াই আপনার ওজন না কমার কারণ।

টিভি দেখতে দেখতে খাওয়া
আজকাল অনেক মা-বাবা বাচ্চাদের খাওয়ার সময় টিভি চালিয়ে দিচ্ছেন। নিজেরাও খেতে খেতে টিভি দেখছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন মনোযোগহীন খাবার খাওয়ার জন্য আপনার ওজন বেড়ে যেতে পারে? কিছু দেখতে দেখতে খেলে একদিকে যেমন আপনি একটু বেশি খাবেন, অন্যদিকে কী খাচ্ছেন, কতটা খাচ্ছেন, তার দিকে নজর থাকে না।

ভুল খাবার খাওয়া
ডায়েটে থাকার সময়টা যে ধরনের খাবার খেতে মানা করা হয়, দেখা যায়, সেসব খাবারের প্রতিই আগ্রহ থাকে বেশি। পছন্দের খাবার একদম না খেয়ে থাকতে থাকতে ধীরে ধীরে ডায়েটের প্রতি অনাগ্রহ তৈরি হয়। অথবা একদিন অনেক বেশি খেয়ে ফেললে কিছুদিনের অনভ্যস্ততা থেকে হজমে সমস্যা হয়। তাই যে খাবার আপনি খেতে পছন্দ করেন, সেটি একবারে বাদ না দিয়ে ধীরে ধীরে কমালে একদিন অনেক বেশি খেয়ে অসামঞ্জস্য তৈরি হবে না। অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে, প্রতিদিন একটু করে খেলে যে পরিমাণ ক্যালরি নেওয়া হতো, একদিন ইচ্ছেমতো খেয়ে ক্যালরি বেড়েছে তার থেকে অনেক বেশি।

প্রতিদিন ওজন মাপছেন
ওজন কমানোর প্রক্রিয়ায় প্রতিদিনই একটু করে ওজন কমে। সে ক্ষেত্রে আপনি যদি রোজ ওজন মাপেন, তাহলে না এর পরিবর্তন দেখতে পাবেন, না বেশি দিন ওজন কমানোর আগ্রহ থাকবে। ওজন কমছে না ভেবে ডায়েট বন্ধ করে দেওয়ার অভিজ্ঞতাও অনেকের আছে। ওজন মাপতে হবে প্রতি সপ্তাহ শেষে একবার বা ১৫ দিন পর পর।

রাতে না ঘুমানো
অনেকেই বলেন, ঘুমালে তো ওজন বাড়বে। অথচ গবেষকেরা বলেছেন ভিন্ন কথা। তাঁরা বলেন, পর্যাপ্ত না ঘুমালে মানুষের ক্ষুধা বেড়ে যায়, হরমোনজনিত সমস্যা হয়, যা খাবারের প্রতি আগ্রহ বাড়ায়। আপনি যদি দিনে অন্তত সাড়ে সাত থেকে আট ঘণ্টা ঘুমান, তাহলে সেটি কিন্তু আপনার ওজন বাড়াতে নয়, বরং কমাতে সহায়তা করবে।

ভুল ব্যায়াম
ওজন কমানোর জন্য ব্যায়ামের বিকল্প নেই। প্রশ্ন হচ্ছে, কোন ব্যায়াম আপনি করবেন? সে ক্ষেত্রে আপনার ওজন, বয়স, উচ্চতা, শারীরিক কাঠামো আর সুস্থতার সঙ্গে মিলিয়ে চিকিৎসক আপনাকে যে ব্যায়াম করতে বলবেন, আপনি তা-ই করুন। নিয়ম হচ্ছে, ব্যায়াম করতে হবে এবং সেই সঙ্গে প্রচুর পানি, চিনিমুক্ত জুস, স্যুপ ইত্যাদি খেতে হবে।
ওজন কমাতে চাইলে সবার আগে আপনাকে মূল সহজ নিয়মগুলো মানতে হবে। ওজন কমানো একটি সহজ ও আনন্দদায়ক ব্যাপার। তাড়াহুড়া করে ভুল প্রক্রিয়ায় এগোলে একদিকে যেমন ওজন না কমে হতাশা বাড়বে, অন্যদিকে আপনার ছোটখাটো এসব ভুলে ওজন বেড়েও যেতে পারে। তাই নিয়ম মেনে চলতে থাকুন, সুস্থতা আসবেই।

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Call Now
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

১৮ প্লাস

Call Now