ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগ তদন্তে প্রথমবারের মতো অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। এতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার শিবিরের সাবেক প্রধান পল ম্যানাফোর্ট ও প্রচার কর্মকর্তা রিচার্ড গেটসের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী তাঁদের বিশেষ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগ তদন্ত করে আনা বিশেষ কৌশলী রবার্ট মুয়েলারের প্রথম অভিযোগটি ২৭ অক্টোবর অনুমোদন করে ওয়াশিংটনের ফেডারেল গ্র্যান্ড জুরি। সে সময় অভিযোগের বিষয়ে বিস্তারিত না জানালেও আজ সোমবার অভিযুক্তদের হেফাজতে নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছিল। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আজ অভিযুক্ত দুজনের নাম প্রকাশ করেন মুয়েলার।

ঘোষণায় মুয়েলার জানান, পল ম্যানাফোর্ট ও রিচার্ড গেটসের বিরুদ্ধে ১২টি করে অভিযোগ আনা হয়েছে। এর মধ্যে আমেরিকার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র, অর্থপাচারের ষড়যন্ত্র, অনিবন্ধিত বিদেশি এজেন্ট হিসেবে কাজ করা এবং মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর বিবৃতি প্রদান উল্লেখযোগ্য। এ ছাড়া বিদেশি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে বিদ্যমান হিসাব বিষয়ে তথ্য না দেওয়ার দায়ে আরও সাতটি করে অভিযোগ আনা হয়েছে দুজনের বিরুদ্ধে।

তবে অভিযোগগুলোর কোনোটিই সরাসরি নির্বাচনী প্রচার সংশ্লিষ্ট নয়। যদিও অভিযোগগুলোর সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারের সংযোগ স্থাপন সম্ভব। মুয়েলারের ঘোষণার পর বিচার বিভাগে রবার্ট মুয়েলারের কাছে পল ম্যানাফোর্ট আত্মসমর্পণ করেন বলে জানিয়েছে সিএনএন । পরে পৃথকভাবে তাঁর ব্যবসায়িক অংশীদার ও ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার কর্মকর্তা রিচার্ড গেটসও আত্মসমর্পণ করেন। নিয়ম অনুযায়ী তাঁদের পৃথকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁদের ছবি ও আঙুলের ছাপ নিয়ে ওয়াশিংটনের ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। পরে তাঁদের ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট ডেবোরাহ রবিনসনের সামনে হাজির করা হবে।

বিষয়টি সম্পর্কে প্রেসিডেন্টকে অবহিত করেছেন হোয়াইট হাউসের আইনজীবীরা। এ বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেওয়া না হলেও বিষয়টি গভীর পর্যবেক্ষণে রয়েছে বলে সিএনএনকে জানিয়েছে হোয়াইট হাউসের একটি সূত্র। এদিকে এ বিষয়ে হোয়াইট হাউসের অবস্থান স্পষ্ট করতে প্রেসসচিব সারাহ স্যান্ডার্স সংবাদ সম্মেলন করবেন বলে জানিয়েছেন। পল ম্যানাফোর্টের আইনজীবীরাও এখনো এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের এপ্রিলে ট্রাম্পের প্রচার দলের দায়িত্ব নেন পল ম্যানাফোর্ট। মূলত রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়নের দৌড়ে ট্রাম্পকে টিকিয়ে রাখতে আন্তর্জাতিক লবিস্ট হিসেবে দীর্ঘ অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ম্যানাফোর্টকে দলে ভেড়ানো হয়েছিল। পরে ইউক্রেনের রুশপন্থী রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি সামনে এলে আগস্টে পদত্যাগ করেন ম্যানাফোর্ট। সে সময় থেকেই কোনো ধরনের ভুল করেননি বলে দাবি করে এলেও নির্বাচনী প্রচারের সময় রুশ আইনজীবীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন বলে প্রমাণ পাওয়া যায়। একই ঘটনায় ট্রাম্পের জামাতা জার্ড কুশনারের নামও উঠে আসে।

২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগটি তদন্তের জন্য মুয়েলারকে গত মে মাসে নিযুক্ত করা হয়। সেই থেকে মুয়েলার বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছেন।

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Call Now
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com

১৮ প্লাস

Call Now